বিয়ের আগেই মা হবার সুখবর পান দিয়া!

0
0

বাংলারজয় বিনোদন ডেস্ক:

বিয়ের ৩ সপ্তাহের মধ্যেই সন্তানসম্ভবা দিয়া মির্জা। নেটমাধ্যমে সুখবর দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ট্রোলের শিকার হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী। কেউ বলেছেন, বিয়ে করতে না করতেই বেবি বাম্প! কারও দাবি, বিয়ে করার আসল কারণ তা হলে এটাই? যদিও শুভেচ্ছাবার্তার কমতি ছিল না। কিন্তু অভিনেত্রী কেবল ইতিবাচক মন্তব্য নয়, নেতিবাচক মন্তব্যেরও জবাব দিয়েছেন। চুপ থাকেননি দিয়া মির্জা। এক নেটাগরিক লিখেছেন, খুবই ভালো খবর, কিন্তু সমস্যাটা অন্য জায়গায়। মহিলা পুরোহিতের মন্ত্রে বিয়ে করে প্রচলিত রীতি ভেঙেছেন ঠিকই, কিন্তু বিয়ের আগে গর্ভবতী হওয়ার খবরটা দিলেন না কেন? তার মানে কি বিয়ের আগে গর্ভবতী হওয়াটা অন্যায়? কেন এক জন মহিলা বিয়ের আগে সন্তানসম্ভবা হতে পারেন না? দিয়া সেই মন্তব্যের দীর্ঘ জবাব দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, সন্তানসম্ভবা বলে বিয়ে করেননি তিনি।

বৈভব রেখির সঙ্গে সারা জীবন কাটানোর পরিকল্পনা তার অনেক আগে থেকেই। বিয়ের প্রস্তুতি নেওয়ার সময়ে তারা জানতে পারেন যে, দিয়া গর্ভবতী। তার কথায়, তখনই না জানানোর অন্য কারণ রয়েছে। চিকিৎসা পদ্ধতির জন্য চুপ থাকতে হয়েছিল। শিশুর সুরক্ষার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে এই দিনটার জন্য অপেক্ষা করেছি আমি। জীবনের সব থেকে সুন্দর মুহূর্তে রয়েছি এখন। চিকিৎসা ছাড়া আর কোনও কারণেই এই খবরটি লুকোনোর কোনও উদ্দেশ্য আমার নেই। তার পরে তালিকা করে তিনি বুঝিয়ে দিলেন, কেন এই প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন। তার বক্তব্যের সারাংশ হল, সন্তানের জন্ম দেওয়া বড়ই সুন্দর বিষয়। সেখানে লজ্জা বা লুকোনোর কোনও প্রশ্নই ওঠে না। বিয়ে করে দম্পতি হিসেবে সন্তানের পালন করা হোক বা একা সন্তান মানুষ করা হোক, সেটা ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। সমাজে প্রচলিত পুরুষতান্ত্রিক রীতি আদৌ ঠিক না ভুল, সেই প্রশ্নে না গিয়ে, উচিত-অনুচিতের কথা ভাবাই সঙ্গত। এর আগেও বহু বিতর্কিত বিষয়ে প্রকাশ্যে পক্ষ নিয়েছেন অভিনেত্রী। স্পষ্টবাদী হিসেবে তার নাম-ডাক রয়েছে বহু দিন ধরেই। সেই ভাবমূর্তিকে অক্ষুণ্ণ রেখে ফের সরব হলেন দিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here